সেই প্রমোদতরীতে আরও ৭৯ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত

0
15

ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২০ | আন্তর্জাতিক ডেস্ক

জাপানের ইয়োকোহামা বন্দরে কোয়ারেন্টাইনে থাকা প্রমোদতরী প্রিন্সেস ডায়মন্ডের ৫০০ যাত্রী ছাড়া পেলেও সেখানকার আরও ৭৯ জনকে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে।

এ নিয়ে এই প্রমোদতরীর প্রায় চার হাজার যাত্রীর মধ্যে ৬২১ জনের শরীরে করোনার লক্ষণ পাওয়া গেল।

বুধবার জাপানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, যেসব যাত্রীর শরীরে করোনার লক্ষণ পাওয়া যায়নি তাদের মধ্যে থেকে ৫০০ জনকে প্রমোদতরী প্রিন্সেস ডায়মন্ড থেকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। এছাড়া নতুন করে করোনাক্রান্ত হিসেবে ৭৯ জন শনাক্ত হয়েছেন।

এক যাত্রীর শরীরে করোনাভাইরাসের লক্ষণ পাওয়ার পর গত ৩ ফেব্রুয়ারি থেকে এই বন্দরে কোয়ারেন্টাইনে ছিল প্রিন্সেস ডায়মন্ড। কার্নিভাল করপোরেশনের বিলাসবহুল এই প্রমোদতরীতে প্রায় ৩ হাজার ৭০০ যাত্রী ছিলেন। করোনাভাইরাসের প্রাণকেন্দ্র চীনের হুবেই প্রদেশের বাইরে সর্বোচ্চসংখ্যক আক্রান্ত এখন এই প্রমোদতরীতে।

তরীটি থেকে ইতোমধ্যে তিন শতাধিক নাগরিককে ফিরিয়ে নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। বিশ্বের অন্যান্য দেশও তাদের নাগিরকদের ফিরিয়ে নেয়ার কার্যক্রম শুরু করেছে। বুধবার আরও পরের দিকে অস্ট্রেলিয়ার একটি বিমান জাপানে পৌঁছানোর কথা রয়েছে। এই বিমানে করে অস্ট্রেলিয়ার নাগরিকদের দেশে ফিরিয়ে নেয়া হবে।

জাপানের কর্মকর্তারা বলেছেন, কোয়ারেন্টাইনে থাকাকালীন পরীক্ষা-নিরীক্ষায় যাদের শরীরে করোনার আলামত পাওয়া যায়নি, শুধুমাত্র তারাই তরী ছাড়ার অনুমতি পাবেন। একই সঙ্গে যাদের শরীরে করোনার লক্ষণ পাওয়া যায়নি, কিন্তু আক্রান্তদের সঙ্গে ছিলেন; তারা আবারও অতিরিক্ত কোয়ারেন্টাইনে থাকবেন।

বুধবার চীনের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ বলছে, দেশটিতে মঙ্গলবার নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন আরও এক হাজার ৭৪৯ জন এবং মারা গেছেন ১৩৬ জন। ফলে করোনায় আক্রান্ত হয়ে শুধুমাত্র চীনেই মারা গেলেন ২০০৪ জন এবং চীনের বাইরে হংকংয়ে ২, তাইওয়ান ১, জাপান ১, ফ্রান্স ১ এবং ফিলিপাইন একজন করে মারা গেছেন।

এছাড়া চীনে আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৭৪ হাজার ১৮৫ জন এবং চীনের বাইরে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এক হাজার ১১ জন।

সূত্র : এএফপি।



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে