করোনা পাদুর্ভাবের মধ্যেই ৪ কাশ্মীরিকে হত্যা করলো ভারতীয় সেনাবাহিনী

0
62

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নাহিয়ান হাসান


করোনাভাইরাসের লকডাউনের মধ্যেই কাশ্মীরে স্বাধীনতাকামীদের হত্যা অব্যাহত রেখেছে করেছে হিন্দুত্ববাদী ভারতীয় সেনারা।
মঙ্গলবার (২১ এপ্রিল) ভারত শাসিত কাশ্মীরের শোপিয়ান জেলায় ভারতীয় সেনাদের সাথে বন্দুকযুদ্ধের পরে কমপক্ষে চার স্বাধীনতাকামী নিহত হয়েছেন।
ভারতীয় সেনাবাহিনী জানিয়েছে, করোনাভাইরাস মোকাবেলায় কঠোরভাবে পালন করা লকডাউনের সময় ভারত শাসিত কাশ্মীরে বন্দুকযুদ্ধে চারজন নিহত হয়েছে।
সেনাবাহিনীর মুখপাত্র কর্নেল রাজেশ কালিয়া বুধবার জানান, মঙ্গলবার গভীর রাতে তাদের লুকিয়ে থাকা একটি টিপে পুলিশ ও সৈন্যরা একটি বাড়িতে অভিযান চালালে দক্ষিণ শোপিয়ান জেলার একটি গ্রামে লড়াই শুরু হয় ।
বন্দুকযুদ্ধের সময়, সৈন্যরা বাড়িটি বিস্ফোরক দিয়ে উড়িয়ে দেয়। সাধারণত এই পদ্ধতিকে ভারতীয় বাহিনীর একটি সাধারণ কৌশল হিসেবে বিবেচনা করা হয়ে থাকে।
করোনাভাইরাস মহামারী চলাকালীন লকডাউন সত্ত্বেও ভারত কাশ্মীর জুড়ে মুসলিমবিরোধী অভিযান চালিয়েছে।
যারা স্বাধীনতার জন্যে বা মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ অঞ্চলটিকে পাকিস্তানের সাথে একীভূত করার জন্য লড়াই করে চলেছেন তাদেরকে কট্টর হিন্দুত্ববাদী মোদী সরকার বিদ্রোহী নামে আখ্যায়িত করে থাকে। কট্টর হিন্দুত্ববাদী সরকারি বাহিনী এবং তাদের নির্লজ্জ হলুদ মিডিয়া তাদের উপর সামরিক ও তথ্যপ্রযুক্তিগত আক্রমণ করা থেকে থেমে থাকেনি। অসহায়, নিরপরাধ, কোণঠাসা, সুবিধাবঞ্চিত কাশ্মীরীদেরকে এই ভয়াবহ মহামারীতে তারা আরো কোণঠাসা করে নিজেদের ক্ষমতা সুসংহত করার নিকৃষ্ট পায়তারা চালাচ্ছে।
১৯৮৯ সাল থেকে স্বাধীনতাকামীরা কাশ্মীরে ভারতীয় আগ্রাসনের বিরুদ্ধে লড়াই ও প্রতিবাদ করে আসছে। ভারত পাকিস্তানকে বিদ্রোহীদের সশস্ত্রপ্রশিক্ষণের জন্য দীর্ঘদিন থেকে অভিযুক্ত করে আসছে। তবে পাকিস্তান এই অভিযোগ সবসময় অস্বীকার করে নিজেদের নির্দোষ প্রমাণ করেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে