স্বাধীনতাকামীদের হাতে ৪ সেনা নিহত: হামলা ঠেকাতে সতর্কতা জারি করছে ভারত

0
28

স্বাধীনতাকামী বিদ্রোহীদের হামলায় আধাসামরিক বাহিনীর তিন সদস্য নিহত হওয়ার পর ভারত-মিয়ানমার সীমান্ত ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদেরকে উচ্চ সতর্কাবস্থায় রাখা হয়েছে।

দেশটির এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন যে, ভারতের উত্তরপূর্ব সীমান্তের স্পর্শকাতর জায়গাগুলো চিহ্নিত করা হয়েছে এবং বিদ্রোহী গ্রুপগুলোর হামলা ঠেকানোর জন্য ‘এরিয়া ডোমিনেশান’ মহড়া শুরু করা হয়েছে।

নাগাল্যাণ্ডের মোন ও তুয়েনসাং এলাকায় ভারতের কাছ থেকে স্বাধীনতার জন্য গত কয়েক দশক ধরে গেরিলাদের তৎপরতা চলে আসছে। এই জায়গাগুলোতে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করা হয়েছে।

২৯ জুলাই মিয়ানমার-ভিত্তিক কয়েকটি স্বাধীনতাকামী গ্রুপের সদস্যটা একজোট হয়ে মনিপুরের চান্ডেল জেলঅর সাজিক তাম্পাক সীমান্ত এলাকায় আসাম রাইফেলসের টহলরত সেনাদের উপর হামলা চালায়। এই গ্রুপগুলোর দেয়া এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দাবি করা হয়েছে যে, দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার পশ্চিমাঞ্চলের উপর ভারতের ‘ঔপনিবেশিকতার’ বিরুদ্ধে প্রচারণার অংশ হিসেবে চার সেনাকে হত্যা করা হয়েছে।

১,৬৪৩ কিলোমিটার দীর্ঘ ভারত-মিয়ানমার সীমান্তের মধ্যে সবচেয়ে স্পর্শকাতর জায়গাগুলোর মধ্যে চান্ডেল অন্যতম। ২০১৫ সালে স্বাধীনতাকামী গ্রুপগুলোর সম্মিলিত হামলায় ভারতীয় সেনাবাহিনীর ১৮ সেনা নিহত হয়েছিল।

চান্ডেল সীমান্ত এলাকার ওপারে মিয়ানমারের ভেতরে পিপলস লিবারেশান আর্মি (মনিপুর) এবং ইউনাইটেড ন্যাশনাল লিবারেশান ফ্রন্টের অন্তত দুটো বড় ক্যাম্প রয়েছে। ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনীর উপর হামলার জন্য এই ক্যাম্পগুলোকে ঘাঁটি হিসেবে ব্যবহার করা হয়। এই দুটো সংগঠনেরই এ অঞ্চলের অন্যান্য স্বাধীনতাকামী গ্রুপগুলোর সাথে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রয়েছে।

সূত্র: সাউথ এশিয়ান মনিটর ও দ্য ডিপ্লোম্যাট

শেয়ার করুণ

  •  

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে