ছেলেকে মানুষের মতো মানুষ বানাতে চাই : ইমরুল কায়েস

0
149

স্পোর্টস ডেস্ক : জাতীয় দলে এমন অনেক ক্রিকেটার আছেন যারা ফর্মে না থাকলেও অটোমেটিক চয়েজের তালিকায় থাকেন। কিন্তু উল্টো চিত্র ইমরুল কায়েসের ক্ষেত্রে। ফর্মে থাকা সত্ত্বেও কাঙ্খিত সুযোগ পাননি তিনি।

জাতীয় দলের কোনো ক্রিকেটার চোটাক্রান্ত হলেই সুযোগ মিলে কায়েসের। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই জাতীয় দলে আসা-যাওয়ার মধ্যে রয়েছেন কায়েস। দেশের এ তারকা ক্রিকেটার একটি দৈনিকের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা বলেছেন। তার সেই সাক্ষাৎকারের চুম্বক অংশ তুলে ধরা হল।

প্রশ্ন : গত মাসে আফগানিস্তানের বিপক্ষে চট্টগ্রামে টেস্টে আপনার খেলার কথা ছিল। জাতীয় দলের কন্ডিশনিং ক্যাম্পেও ছিলেন। কিন্তু ছেলের ডেঙ্গুর কারণে….?

ইমরুল কায়েস: আসলে এটা ভাগ্যের ব্যাপার। সবকিছুই ঠিক ছিল কিন্তু ছেলেটার অসুস্থতার কথা শুনে ঘাবড়ে গিয়েছিলাম। আল্লাহর মেহেরবানী সে এখন ভালো আছে।

প্রশ্ন : গত বছর অক্টোবরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচে দুই সেঞ্চুরি আর এক ফিফটি মিলে ৩৪৯ রান করেছিলেন। সেরা ফর্মে থাকা সত্ত্বেও ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ দলে সুযোগ হয়নি…?

ইমরুল: আসলে সবাই চায় জাতীয় দলে খেলতে, দেশের প্রতিনিধিত্ব করতে। আমিও চাই। কিন্তু চাইলেই তো আর হবে না। আমার কাজ পারফর্ম করে যাওয়া, সেটা করেছি। নির্বাচকরা যদি মনে করেন তাহলে আবারও সুযোগ হতে পারে।

প্রশ্ন : জাতীয় দল থেকে বারবার বাদ পড়া নিয়ে যদি বলেন।

ইমরুল কায়েস: যখন একটা জায়গায় আসা-যাওয়ার মধ্যে থাকতে হয়, সেখানে অনেক কিছু দেখা যায়, অনেক কিছু উপলব্ধি করা যায়। ওটাই বুঝেছি। অনেক কিছুই শিখি যখন দলের বাইরে থাকি, অনেক কিছু তখন উপলব্ধি করতে পারি।

প্রশ্ন : আপনার পরিবার নিয়ে জানতে চাই?

ইমরুল কায়েস: আমরা এক ভাই ও এক বোন। আমি বড়, বোন ছোট। তার ঢাকায় বিয়ে হয়েছে। আমার বাবা একজন ব্যবসায়ী ছিলেন। আলহামদুলিল্লাহ তিনি এখনও বেঁচে আছেন। আর বিবাহিত জীবনে আমার একটা ছেলে আছে। এই আর কি।

প্রশ্ন : আপনার ছেলে শোয়াইব বিন কায়েসকে নিয়ে কী পরিকল্পনা?

ইমরুল কায়েস: ওকে নিয়ে আমার তেমন কোনো স্বপ্ন নেই। ও যেটা হতে চায় সেটাই হবে। আমি যদি এখন বলি তাকে হাফেজ বানাতে চাই, ও যদি না হতে চায় তাহলে ব্যাপারটা কেমন হবে! ছেলেকে মানুষের মতো মানুষ বানাতে চাই।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে