পাকিস্তান যাচ্ছেন না মুশফিক

0
118


পাকিস্তান যাচ্ছেন না মুশফিক

নিরাপত্তা ঝুঁকি নয়, মূলত পারিবারিক কারণেই আসন্ন পাকিস্তান সফরে যেতে চাইছেন না দেশসেরা ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। আর এই পারিবারিক কারণটি হচ্ছে ২৪ জানুয়ারি মুশফিকের চাচাতো বোনের বিয়ে। তার বাবা মাহবুব হামিদ সূত্রে জানা গেছে, ভারত সফরেই মুশফিক তাকে জানিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু বিপিএলের পরই তিনি কিছুদিন বিশ্রামে থাকবেন। সে হিসেবেই মুশফিকের চাচাতো বোন জৌসিকা হামিদের বিয়ের তারিখ নির্ধারণ করা হয়।

যদিও বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন আগেই জানিয়েছেন, পাকিস্তান সফরে আগ্রহ নেই মুশফিকুর রহিমের। কিন্তু কী কারণ সে ব্যাপারে খোলাসা করেননি তিনি। যদিও তখন পর্যন্ত পাকিস্তান সফরের চূড়ান্ত কোনো সূচি জানা যায়নি। তবে এরইমধ্যে ক্রিকেটের তিন ফরমেটেই পাকিস্তান সফরের জন্য সূচি নির্ধারণ করেছে বিসিবি। ২৪ জানুয়ারি প্রথম টি-টোয়েন্টিতে পাকিস্তানের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। তাই ২২ জানুয়ারি দেশ ত্যাগ করবে টাইগার বাহিনী।

পাকিস্তান সফরে বাংলাদেশের বিদেশি হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গোও যেতে রাজি আছেন। মুশফিক কেন পাকিস্তানে যেতে আগ্রহী নয়, এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তার বাবা মাহবুব হামিদ জানান, বাংলাদেশ যখন ভারত সফর করেছিল তখনই মুশফিক আমাকে জানিয়েছে, বিপিএলের পর সে কিছুদিন বিশ্রাম নিতে চায়। সে মোতাবেক তার চাচা মুকছেদ হামিদের মেয়ের বিয়ে ঠিক করা হয় ১০ জানুয়ারি। পরে সেই তারিখ পিছিয়ে করা হয় ১৭ জানুয়ারি। কিন্তু মুশফিকের খুলনা টাইগার্স বিপিএলের ফাইনালে উঠায় বিয়ের তারিখ আরেক ধাপ পিছিয়ে নির্ধারণ করা হয় ২৪ জানুয়ারি। মূলত মুশফিকুরের কাছ থেকে মতামত নিয়েই তার চাচাতো বোনের বিয়ের তারিখ ঠিক করা হয়েছিল। আর মুশফিকও তার একমাত্র চাচাতো বোনের বিয়েতে উপস্থিত থাকতে চান।

পাকিস্তান সফর নিয়ে প্রথমে বেশ জটিলতা ছিল। সেটির সমাধান হয়েছে। পাকিস্তান সফরের সূচি চ‚ড়ান্ত হয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) প্রধানের দুবাইতে অনুষ্ঠিত আইসিসির সভার পর। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড ও আইসিসি প্রধানের বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় তিন দফায় পাকিস্তান সফর করবে বাংলাদেশ দল। এবারের সফরে পাকিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। ম্যাচ তিনটি অনুষ্ঠিত হবে যথাক্রমে ২৪, ২৫ ও ২৭ জানুয়ারি। তিনটি ম্যাচই হবে লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে।

এই তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলে বাংলাদেশ দল দেশে ফিরলেও ফেব্রুয়ারিতে আবার পাকিস্তান সফর করবে টাইগাররা। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দুটি টেস্ট ম্যাচের প্রথমটি অনুষ্ঠিত হবে রাওয়ালপিন্ডিতে ৭ ফেব্রুয়ারি। ওই ম্যাচ খেলে দেশে ফেরার পর এপ্রিলে আবারো পাকিস্তান যাবে বাংলাদেশ দল। ৩ এপ্রিল একমাত্র ওয়ানডে খেলার পর ৫ এপ্রিল থেকে শুরু হবে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট। তিন সংস্করণে সিরিজ চূড়ান্ত হওয়ায় ছুটি শেষে টেস্ট ও ওয়ানডে খেলার ব্যাপারে আগ্রহ দেখাতে পারেন মুশি।

নকি



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে