প্রতিশোধ নিল ম্যানইউ

0
151


প্রতিশোধ নিল ম্যানইউ

এফএ কাপের তৃতীয় রাউন্ডের হোম ম্যাচে ওলভারহামটন ওয়ান্ডারার্সকে ১-০ গোলে হারিয়ে চতুর্থ রাউন্ড নিশ্চিত করেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ম্যাচটিতে ম্যানইউর হয়ে একমাত্র জয়সূচক গোলটি করেন জুয়ান মাতা। ওলভারহামটনের বিপক্ষে এই জয়ের মাধ্যমে গত বছরের প্রতিশোধ নিল দি রেড ডেভিলরা। গত মৌসুমের এফএ কাপ থেকে ম্যানইউকে বিদায় করে দেয় ওলভারহামটন। আর এবার তাদের বিদায় করে দিল ম্যানইউ। দুদলের তৃতীয় রাউন্ডের প্রথম ম্যাচটি ০-০ গোলে ড্র হয়েছিল। আর দ্বিতীয় ম্যাচটি ১-০ গোলে জেতায় চতুর্থ রাউন্ড নিশ্চিত হয় ম্যানইউর।
এদিকে বৃহস্পতিবার ম্যাচটিতে ইনজুরিতে আক্রান্ত হয়ে মাঠ ছাড়েন ম্যানইউর মার্কাস রাসফোর্ড। ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে বদলি খেলোয়াড় হিসেবে খেলতে নামেন তিনি। ১৬ মিনিট পরই ইনজুরিতে পড়তে হয় থাকে। আগামী রবিবার লিভারপুলের বিপক্ষে প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচ খেলতে নামবে ম্যানইউ। এখন রাসফোর্ডকে ওই ম্যাচে পাওয়া যাবে কিনা তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। ম্যাচ শেষে গতকাল রাসফোর্ডের ইনজুরি নিয়ে ম্যানইউ কোচ ওলে গানার শলশেয়ার বলেন, ‘রাসফোর্ড বৃহস্পতিবার হাঁটতে পারেনি। এখন পরীক্ষা করে বলা যাবে কী অবস্থায় রয়েছে। আশা করি, লিভারপুলের বিপক্ষে ম্যাচটিতে খেলতে পারবে তিনি। আর যদি তাকে বিশ্রামে থাকতে হয়। তা হলে তাকে বিশ্রাম দেয়া হবে। সব সিদ্ধান্ত নেয়া হবে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর’।
এদিকে ম্যাচটি শুরু হওয়ার ১০ মিনিটের মাথায় একটি গোল পায় ওলভারহামটন। কিন্তু রেফারি এটি হ্যান্ডবলের কারণে বাতিল করে দেন। বলটি হাত ছুঁয়েছিল কিনা তা পরীক্ষা করার জন্য ভিএআরের সহায়তা নেন রেফারি। ভিএআরে পরীক্ষা করলে হ্যান্ডবল ধরা পড়ে। তবে ভিএআরের এ সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারেননি ওলভারহামটনের কোচ নুনো এসপিরিতো সান্তো। ম্যাচ শেষে নিজের অভিব্যক্তি জানাতে গিয়ে ভিএরআরের ওপর বিরক্ত প্রকাশ করেন তিনি। ম্যাচ শেষে নুনো বলেন, ‘এটি ভিএআর। এটি নিয়ে আমাদের কিছু করার নেই। তবে ফুটবলের আসল সৌন্দর্যের ক্ষতি করছে এটি’।
তৃতীয় রাউন্ডের প্রথম ম্যাচটি হয়েছিল ওলভারহামটনের মাঠ মলিনেক্স স্টেডিয়ামে। ওই ম্যাচটিতে অবিশ^াস্যভাবে ওলভারহামটনের জাল লক্ষ্য করে কোনো শট করতে পারেনি ম্যানইউ। অন্যদিকে ওলভারহামটন ম্যানইউর জাল লক্ষ্য করে ২ বার শট নিতে সমর্থ হয়েছিল। কিন্তু গতকালের ম্যাচটিতে আধিপত্য দেখিয়েছে ম্যানইউ। তারা ম্যাচটিতে ওলভারহামটনের জাল লক্ষ্য করে ৬ বার শট নিতে সমর্থ হয়। অন্যদিকে ওলভারহামটন ২ বার শট নিতে সমর্থ হয়। তবে তারা ২ বারের চেষ্টায়ও গোল তুলে নিতে পারেননি। তা ছাড়া বল দখলের লড়াইয়েও ওলভারহামটনের চেয়ে এগিয়ে ছিল ম্যানইউ। পুরো ম্যাচে শলশেয়ারের শিষ্যরা ৫৭ ভাগ সময় বল নিজেদের দখলে রাখতে সমর্থ হয়। অন্যদিকে ওলভারহামটন ৪৩ ভাগ সময় বল নিজেদের দখলে রাখতে সমর্থ হয়।

এসএইচ



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে