জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামে হবে আইসোলেশন সেন্টার

0
22


জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামে হবে আইসোলেশন সেন্টার

দেশের বেশ কয়েকটি স্টেডিয়াম প্রস্তুত করা হচ্ছে করোনার কাজে ব্যবহার করার জন্য। তাই বন্দর নগরী চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে করোনার আইসোলেশন সেন্টার করার পরিকল্পনা চলছে। যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান গণমাধ্যমে এ তথ্য জানিয়েছেন।

জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম ছাড়া পাশের চট্টগ্রাম বিকেএসপি, মিরপুর ইনডোর স্টেডিয়াম, গুলশান শুটিং কমপ্লেক্স, রাজশাহী মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্সসহ আরও কয়েকটি ক্রীড়া স্থাপনাও করোনার কাজে ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘প্রয়োজনে যেকোনো সময় এগুলোকে কোয়ারেন্টিন সেন্টার, আইসোলেশন সেন্টার বা হাসপাতাল হিসেবে ব্যবহার শুরু করা হবে।’

এছাড়াও বিসিবির গ্রাউন্ডস কমিটির ব্যবস্থাপক সৈয়দ আবদুল বাতেন বলেন, জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের করপোরেট বক্সগুলোই শুধু আইসোলেশন সেন্টারের জন্য নেয়া হবে। বিদেশফেরত যাত্রীদের এখানে রাখা হতে পারে। মাঠ বা ড্রেসিংরুম ব্যবহার করা হবে না।

তিনি আরও বলেন, ‘যেহেতু একদম চারিদিক বন্ধ, তাই চাইলেও ড্রেসিংরুমে আইসোলেশন সেন্টার করা যাবে না। বদ্ধ ও রুদ্ধ জায়গায় করোনা রোগীর আইসোলেশন সম্ভব নয়। তার চেয়ে আমরা মনে করি হসপিটালিটি বক্সগুলো হলো সর্বোত্তম। আইসোলেশন সেন্টার হিসেবে শেরে বাংলা ও জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের হসপিটালিটি বক্সগুলো অনায়াসে ব্যবহার করা যাবে। সেগুলোও মূলত কাঁচঘেরা ঘর। একসাথে সর্বোচ্চ ৮ থেকে ১০ জন বসতে পারে। সেখানে বেড ব্যবস্থা করলে হয়ত ৪-৫ জন থাকতে পারবে একটাতে। কাঁচঘেরা শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ঐ হসপিটালিটি বক্সগুলো খোলামেলা আছে।

এমআই



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে