আইসিসির হল অব ফেমে তিন ক্রিকেটার

0
31


আইসিসির হল অব ফেমে তিন ক্রিকেটার

ক্রিকেটের অভিভাবক সংস্থা আইসিসি তা সবাই জানেন। আইসিসি হল অব ফেমে অন্তর্ভুক্ত হওয়া যে কোনো ক্রিকেটারের স্বপ্ন। ক্রিকেট মঞ্চে দুর্দান্ত নৈপুণ্য প্রদর্শনের স্বীকৃতিস্বরূপ কিংবদন্তি ক্রিকেটারদের হল অব ফেমে নাম তুলে থাকে আইসিসি।

রবিবার (২৩ আগস্ট) তিনজন কিংবদন্তি ক্রিকেটারকে সম্মানজনক এই তালিকার অন্তর্ভুক্ত করেছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা। তারা হলেন দক্ষিণ আফ্রিকার জ্যাক ক্যালিস, অস্ট্রেলিয়ার লিসা স্টালেকার ও পাকিস্তানের জহির আব্বাস। নিজেদের ডিজিটাল চ্যানেলে এক শো আয়োজন করে এই ঘোষণা দেয় আইসিসি। এই শোর উপস্থাপনায় ছিলেন অ্যালান উইলকিন্স। প্রধান অথিতি হিসেবে ছিলেন কিংবদন্তি সাবেক ব্যাটসম্যান সুনীল গাভাস্কার, ম্যালানি জোন্স এবং শন পোলক। এছাড়া নতুনভাবে হল অব ফেমে অন্তর্ভুক্ত হওয়া তারকাদের অভিনন্দন জানিয়েছেন ওয়াসিম আকরাম, গ্রায়েম স্মিথ এবং অ্যালিসা হিলি।

আইসিসি হল অব ফেম চালু হয় ২০০৯ সালের ২ জানুয়ারি। আইসিসির সঙ্গে যেখানে সহযোগী হিসেবে আছে ফেডারেশন অব ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেটার্স এসোসিয়েশন (ফিকা)। আইসিসি হল অব ফেম ক্রিকেটের কিংবদন্তিদের সম্মাননা দিয়ে থাকে। প্রতি বছর নতুন করে একাধিক কিংবদন্তি ক্রিকেটারকে এই হল অব ফেমে যুক্ত করা হয়। এর আগে ২০১৯ সালে যুক্ত হয়েছিলেন শচীন টেন্ডুলকার, ক্যাথরিন ফিটজপ্যাট্রিক ও অ্যালান ডোনাল্ড।

এবার দক্ষিণ আফ্রিকার কিংবদন্তি অলরাউন্ডার জ্যাক ক্যালিস জায়গা করে নিয়েছেন এই হল অব ফেমে। ৪র্থ প্রোটিয়া ক্রিকেটার হিসেবে হল অব ফেমে জায়গা পেয়েছেন তিনি। এর আগে ২০০৯ সালে যুক্ত হয়েছিলেন গ্রায়েম পোলক ও ব্যারি রিচার্ডস। ২০১৯ সালে জায়গা পেয়েছিলেন সাদা বিদ্যুৎখ্যাত অ্যালান ডোনাল্ড।

জ্যাক ক্যালিস আন্তর্জাতিক টেস্ট ও ওয়ানডে দুই ফরমেটেই ১০ হাজার রান ও দুই শতাধিক উইকেট লাভ করেছেন। টেস্ট ফরমেটে রেকর্ড ২৩ বার ম্যান অব দ্য ম্যাচ অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন এই অলরাউন্ডার। এছাড়া টেস্ট ও ওয়ানডে দুই ফরম্যাটেই দক্ষিণ আফ্রিকার সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তিনি। এছাড়া অজি নারী ক্রিকেটার লিসা স্টালেকার ২০০৫ ও ২০১৩ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপ জিতেছেন। তিনি ২০১০ ও ২০১২ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপও জিতেছেন। ইতিহাসের প্রথম নারী ক্রিকেটার হিসেবে ওয়ানডেতে এক হাজার রান ও ১০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন এই অলরাউন্ডার।

আইসিসির চলতি বছরের হল অব ফেমে জায়গা পাওয়া জহির আব্বাসকে রান মেশিন নামেও ডাকা হতো। একমাত্র এশিয়ান ব্যাটসম্যান হিসেবে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ১০০টি শতক হাঁকিয়েছেন এই পাকিস্তানি ক্রিকেটার। ১৯৮২-১৯৮৩ সালে আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ধারাবাহিকভাবে তিনটি শতক হাঁকিয়ে ছিলেন তিনি।

এসএইচ



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে