সেপ্টেম্বরে শ্রীলঙ্কা যাচ্ছে টাইগাররা

0
21


সেপ্টেম্বরে শ্রীলঙ্কা যাচ্ছে টাইগাররা

করোনার কারণে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের বেশ কয়েকটি সিরিজ বাতিল হয়ে যায়। এরমধ্যে রয়েছে আয়ার‌্যান্ড, নিউজিল্যান্ড সিরিজ। আর পরপর বেশ কয়েকটি সিরিজ বাতিল হয়ে যাওয়ায় বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার অপেক্ষাটা আরো বেড়ে যায়। তবে আশার খবর হলো আগামী অক্টোবর মাসেই টাইগার সমর্থকদের অপেক্ষার পালা শেষ হবে। এ সময় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ খেলবে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা।

এই সিরিজ সামনে রেখে আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর শ্রীলঙ্কার উদ্দেশে উড়াল দেবে জাতীয় দল। তাদের সঙ্গে একই দিনে শ্রীলঙ্কা যাবে হাই পারফরম্যান্স বা এইচপি দলও। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের সিরিজ শুরু হওয়ার জোর সম্ভাবনা রয়েছে ২৪ অক্টোবর থেকে। বাংলাদেশ মূলত তাদের অনুশীলনটা সারবে শ্রীলঙ্কাতে গিয়েই। সেখানে দীর্ঘ ১ মাস নিজেদের ঝালিয়ে নেয়ার সুযোগ পাবে টাইগাররা।

তবে শ্রীলঙ্কার গিয়ে অনুশীলন করবে এই জন্য খেলোয়াড়দের দেশে বসিয়ে রাখবে না ক্রিকেট বোর্ড। তারা সেপ্টেম্বরের মাঝ সময় থেকে একটি ক্যাম্পের আয়োজন করবে। যেখানে শ্রীলঙ্কা সফরে সুযোগ পাওয়া খেলোয়াড়রা অংশ নেবেন। তাদের নিয়ে ছোটখাটো একটা কন্ডিশনিং ক্যাম্প হবে। আজ ক্রিকেট অপারেসন্স, এইচপি, বোর্ড সিইও আর নির্বাচকদের যৌথ সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

বিসিবি পরিচালক ও ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান ঐ যৌথসভা শেষে জানান, ‘আগামী ১০ থেকে ১৪ সেপ্টেম্বরের মধ্যে জাতীয় দলের অনুশীলন শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা। সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহ নাগাদ জাতীয় দলের সব বিদেশি কোচ ঢাকায় চলে আসবে। তাদের অধীনেই ১৪ সেপ্টেম্বরের ভেতর শুরু হয়ে যাবে শ্রীলঙ্কা সফরের প্রস্তুতি। সব মিলে ৭-৮ দিনের মতো অনুশীলন হবে দেশে।’

সেপ্টেম্বরে বিসিবি দলীয় ক্যাম্পের আয়োজন করলেও এই কুরবানি ঈদের আগে থেকেই ব্যক্তিগত উদ্যোগে অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছেন জাতীয় দলের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার। কুরবানির ঈদের আগে হয় প্রথম ধাপের অনুশীলন। এখন চলছে দ্বিতীয় ধাপের অনুশীলন। বুধবার ছিল দ্বিতীয় ধাপের অনুশীলনের পঞ্চম দিন।
এদিন সূচি অনুযায়ী অনুশীলন করেছেন সব টাইগার ক্রিকেটার।

আজ দিনের শুরুটা করেন মুশফিকুর রহিম ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। সকাল ৯টায় হোম অব ক্রিকেট মিরপুর-শের-ই বাংলায় এসেই মুশফিকুর রহিম চলে যান ইনডোর ব্যাটিং করার জন্য। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী ব্যাটিং অনুশীলন করে করে তিনি রানিং করতে নেমে যান। রানিং শেষে উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম নিজের উইকেট কিপিংটাকেও ঝালিয়ে নেন।

মুশফিক যখন ব্যাটিংয়ে তখন রানিং করে ব্যস্ত সময় কাটিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ৫০ মিনিটের রানিং শেষে মুশফিক যখন ইনডোরে ব্যাটিং করে বেরিয়ে আসেন তখন নিজের ব্যাটিং ঝালাতে যান মাহমুদউল্লাহ। একই সময়ে জতীয় ক্রিকেট একাডেমির মাঠে বোলিং অনুশীলন করেন তাইজুল ইসলাম ও আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।

মুশফিক-মাহমুদউল্লাহর সেশন শেষ হতেই অনুশীলন শুরু করেন মোহাম্মদ মিঠুন। সূচি অনুযায়ী সকাল ১১টা থেকে ব্যাটিং শেষে করে রানিং ও জিম করেন তিনি। এরপর আসেন সাদমান ইসলাম অনিক ও এনামুল হক বিজয়। দুজনই বিসিবির পাঠানো সূচিতে অনুশীলন সেশনে ব্যস্ত সময় পার করেন। সূচি মোতাবেক দিনের সবশেষ সদস্য হিসেবে অনুশীলনে যোগ দেন সাব্বির রহমান। ছেলেদের পাশাপাশি এখন অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছে টাইগ্রেসরাও।

এসআর



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে