টটেনহ্যামে যোগ দিলেন আলোচিত মরগান

0
17


টটেনহ্যামে যোগ দিলেন আলোচিত মরগান

যতনা ফুটবলে আলোচিত তার থেকেও অনেক বেশি আলোচনা হয় অ্যালেক্স মরগানকে নিয়ে মাঠের বাইরে। ফুটবল মাঠে সুন্দরভাবে নিজেকে উপস্থাপন করে মাঠে দর্শক টেনেছেন। মাঠের বাইরেও সমান তালে লড়ে গিয়েছেন নিজের নির্মাণশৈলি দিয়ে। মাঠের খেলাই ও জুড়িমেলা ভার ৩১ বছর বয়সি যুক্তরাষ্ট্রের ফুটবলারের। এরই মধ্যে আমেরিকার জার্সি গায়ে জড়িয়ে দুবার বিশ^কাপ জয়ের পিছনের নায়ক ছিলেন মরগান। সম্প্রতি এই তারকা এফ এ ইউমেন ক্লাব খেলতে লাইয়ন থেকে টটেনহ্যামে ধারে যোগ দিয়েছেন।

মাঠের বাইরের জগৎটা যেন তার চেয়েও রঙিন মরগানের। মাঠের বাইরে তিনি মডেল, অভিনেত্রী ও লেখিকা। মাঠের বাইরেও সমানভাবেই আলো ছড়িয়েছেন এই ফুটবলার। মরগান তার সুন্দর মুখের হাসি দিয়ে কোটি ভক্তের হৃদয় হরণ করেছেন। তাই তাকে নিয়ে যতনা আলোচনা হয় ফুটবলার হিসেবে তার থেকে বেশি হয় তার সৌন্দর্যের জন্য। মরগানই একমাত্র নারী ফুটবলার যাকে ফিফা তাদের ভিডিও গেম সিরিজের কাভারে রেখেছে।

মরগান সুন্দর হলেও সে তার ব্যবসায়িক ডিমান্ড সম্পর্কে যথেষ্ট অবগত আছেন। সে তার এই সৌন্দর্যের দ্যুতি ছড়াতে কখনোই কার্পণ্য বোধ করেন না। নিউইয়র্ক ফ্যাশন উইকে সে নিয়মিত ক্যাট ওয়াকে মুগ্ধতা ছড়ান। মরগান জানে যতনা দর্শক খেলা দেখতে টিভি স্কিনের সামনে বসে তার থেকেও কম বসে না তার সৌন্দর্য উপভোগ করতে।

অ্যালেক্স মরগান

মরগান ইএসপিএনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, আমি অবশ্যই মাঠের বাইরের এসব কর্মকাণ্ড করতে ভালোবাসি, যা আমার দর্শকদের মাঠে টানতে আকৃষ্ট করে। মরগান বর্তমান ফুটবল বিশ্বের সবচেয়ে ডিমান্ডেবল একজন তারকা ফুটবলার। ইতোমধ্যেই বিশে^র বড় বড় ৭টি কোম্পানির মডেল ও ব্রান্ড অ্যাম্বাসেডর হয়েছেন। যার মধ্যে রয়েছে নাইকি, ম্যাকডোনালস, ট্রামপেক্স, ক্যাপসিক, প্যানাসনিক, নেন্সস উইক ও কোকা- কোলার মতো প্রতিষ্ঠানের নাম। এই তারকা বলেন, আমি মাঠে মেকআপ দিয়ে খেলতে পছন্দ করি। আমি যখন ম্যাচ খেলার জন্য প্রস্তুতি নেই তখন মেকআপকেও অগ্রাদিকার দেই। সাহসী এই ফুটবল মডেল গেল ২০১৯ বিশ^কাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে গোল করে চা খাওয়ার মতো এক সেলিব্রেশন করে সমালোচিত হয়েছিলেন কিন্তু তা তিনি খুব একটা গায়ে মাখেননি।

ফিফা এই তারকা ফুটবলারকে বহুবার সম্মানিত করেছেন রেখেছেন ভিডিও গেমের কাভার হিসেবে। ফিফার ১৬তম ম্যাগাজিনের এডিসনে মেসির সঙ্গে কাভার হয়ে ছিলেন এই তারকা।

২০১৮ সালে হলিউডে অ্যালেক্স এবং মি সিনেমায় অভিনয় করে বিশ^কে দেখিয়েছেন তার অভিনয় শৈলি। তার লিখা শিশুতোষ বই নিউইয়র্কে বিক্রিতে সেরাদের মধ্যে রয়েছে। চলতি বছরের মে মাসে মেয়ে সন্তানের জননী হয়েছেন এই বহুরূপী তারকা ফুটবলার। মরগান প্রো সকার ইউএসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, এমন তো নয় যে অমি দিনের মধ্যে ১০-১২ ঘণ্টা এসব নিয়ে ব্যস্ত থাকি, আমি আমার সময় থেকে ৩-৪ ঘণ্টা এসব কাজে ব্যয় করি, যা আমাকে মাঠের খেলায় শক্তি জোগায়।

এমএইচ



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে