কোনো বীরাঙ্গনার শরীরেও এত চিহ্ন পাওয়া যায়নি : কাদের সিদ্দিকী

0
39

নিউজ ডেস্ক: নোয়াখালীর সুবর্ণচরে গণধর্ষণের শিকার গৃহবধূকে দেখতে গিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা ও কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেছেন, স্বাধীনতার পর যেসব বীরাঙ্গনা মা-বোনদের উদ্ধার করা হয়েছিল, তাদের শরীরেও এতগুলো কামড়ের চিহ্ন পাওয়া যায়নি।

তিনি বলেন, বলেন, ৩০ লাখ শহীদের রক্ত ও ২ লাখ মা-বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে দেশ স্বাধীন করার ৪৭ বছর পর দেখতে হলো একটি মাকে গণধর্ষণের পর শরীরের ২২ টি স্থানে কামড়িয়ে তার অঙ্গ ছিঁড়ে নিয়েছে। স্বাধীনতার পর যেসব বীরাঙ্গনা মা-বোনদের উদ্ধার করা হয়েছিল, তাদের শরীরেও এতগুলো কামড়ের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। যা এবার ঘটেছে আমার বোনের নৌকায় একটি ভোট না দেওয়ায়।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের একটি প্রতিনিধি দল শনিবার নোয়াখালী সদর হাসপাতালে সুবর্ণচরে গণধর্ষণের শিকার গৃহবধূকে দেখতে যান।

প্রতিনিধি দলে অন্যান্যের মধ্যে ছিলেন- মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, আ স ম আব্দুর রব, বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীর উত্তম, আবদুল আউয়াল মিন্টু, মোহাম্মদ শাজাহান, বরকতউল্লা বুলু, ব্যারিস্টার মাহবুবউদ্দিন খোকন, জয়নাল আবেদীন ফারুখ, শহিদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, সৈয়দা আফিফা আশরাফি পাপিয়া, রেহানা আক্তার রানু প্রমুখ।

ঐক্যফ্রন্টের নেতৃবৃন্দ নির্যাতনের শিকার গৃহবধূর সঙ্গে দেখা করে নোয়াখালী সদর হাসপাতালের সামনে সাংবাদিকদের কাছে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানান।

বিকেলে নোয়াখালী আইনজীবী সমিতিতে জেলার আইনজীবী ও সাংবাদিকদের সঙ্গে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতৃবৃন্দ মতবিনিময় করবেন। পরে বিকেলে তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যেতে পারেন বলে জানা গেছে।

এ সময় মির্জা ফখরুল বলেন- আমি বাকরুদ্ধ, নিন্দা ও প্রতিবাদের ভাষা নেই। একটি ভোটের জন্য গণধর্ষণের মতো এই ঘটনা ঘটিয়ে, ভবিষ্যতের যে কোন নির্বাচনের জন্য ভোটারদের থ্রেট করল সরকার। যাতে ভবিষ্যতে আর কেউ ভোট কেন্দ্রে না আসে।

আসম আ. রব বলেন, ধানের শীষে ভোট দেয়ায় পৃথিবীর সবচেয়ে জঘন্যতম ও বর্বরতম এই ধর্ষণের ঘটনা গোটা পৃথিবীর মানবতাকে বাকরুদ্ধ করেছে। এরা শিয়াল-কুকুরের চেয়েও খারাপ। তিনি বাংলাদেশসহ পৃথিবীর সমস্ত বিবেকবান মানুষকে জাগ্রত হয়ে সমস্বরে প্রতিবাদ করতে আহ্বান জানান।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে