অবশেষে শুরু হতে যাচ্ছে যমুনা নদীর উপর পৃথক ডুয়েল গেজ রেললাইনের কাজ

0
123


https://www.newstangail.com/wp-content/uploads/2020/01/1486560910.jpg

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: তিন হাজার কোটি টাকা ব্যয় বৃদ্ধি করে অবশেষে শুরু হতে যাচ্ছে যমুনা নদীর উপর পৃথক ডুয়েল গেজ রেললাইনের কাজ। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আগামি ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যমুনায় রেলসেতু নির্মাণকাজ উদ্বোধন করবেন।

২০১৬ সালে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) যমুনায় পৃথক ডুয়েল গেজ রেললাইন প্রকল্পটি পাশ করে। কিন্তু, এরপর বিভিন্ন জটিলতায় সেই প্রকল্পের দৃশ্যমান কোনো অগ্রগতি দেখা যায়নি। রেল সেতুটি যমুনায় বঙ্গবন্ধু সেতুর পাশে তৈরি করা হবে বলেও জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

৯ জানুয়ারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে ডুয়েল গেজ রেললাইনের কাজ শুরুর প্রস্তাব পাশ হয়েছে।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল জানিয়েছেন, সেতু তৈরির কাজে অর্থায়ন করবে জাপান সরকার। তিনি বলেছেন, রেলসেতুর খরচ বেড়ে যাওয়া সেই প্রস্তাবটি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) থেকে নতুন করে পাশ করিয়ে নিতে হবে।

টাঙ্গাইলে যমুনা নদীর উপর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলওয়ে সেতু নির্মাণে ব্যয় বেড়েছে। প্রায় সোয়া তিন হাজার কোটি টাকার ব্যয় বাড়ানোর প্রস্তাবে সরকার সায় দিয়েছে। বাড়তি ব্যয়ের পুরো অর্থই ঋণ সহায়তা হিসেবে দেবে জাইকা।

বৃহস্পতিবার (৯ জানুয়ারি) সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় বঙ্গবন্ধু রেল সেতুর ব্যয় বৃদ্ধির প্রস্তাব শর্তসাপেক্ষে সরকারি ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি অনুমোদন দিয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। ২০১৬ সালে যমুনা নদীর ওপর রেলসেতু নির্মাণে ৯ হাজার ৭৩৪ কোটি ৭ লাখ টাকার প্রকল্পটি অনুমোদন দিয়েছিল একনেক। তিন বছরের মাথায় প্রায় সোয়া তিন হাজার কোটি ব্যয় বেড়ে এটি এখন ১২ হাজার ৯৫০ কোটি টাকার প্রকল্পে দাড়িয়েছে। বাড়তি ব্যয়ের পুরো অর্থ জাইকা ঋণ সহায়তা হিসেবে দেবে বলে জানান অর্থমন্ত্রী।

বৈঠক সূত্র জানিয়েছে, জাপানি কোম্পানি সিনাগাওয়া ইন্টারসিটি ১২,৯৫০ কোটি টাকায় এ সেতু তৈরি করবে। শিডিউল অনুযায়ী ২০২৩ সালের মধ্যে সেতু নির্মাণের কাজ শেষ হবে।



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে