একদিন পেছালেও গ্রন্থমেলার প্রস্তুতিতে ভাটা নেই

0
18


একদিন পেছালেও গ্রন্থমেলার প্রস্তুতিতে ভাটা নেই

সরস্বতী পূজার কারণে ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তারিখ দুইদিন পিছিয়ে ১ ফেব্রুয়ারি (শনিবার) নির্ধারণ করা হয়েছে। এ কারণে পিছিয়ে এসএসসি পরীক্ষার তারিখও। এবার পেছালো অমর একুশে গ্রন্থমেলার উদ্বোধনের তারিখ। ঐতিহ্য অনুযায়ী ১ ফ্রেব্রুয়ারি থেকে অমর একুশে গ্রন্থমেলা শুরু হওয়ার কথা থাকলেও এবার সিটি নির্বাচনের কারণে একদিন পিছিয়ে ২ ফেব্রুয়ারি (শনিবার) মেলা শুরু হবে। মেলা চলবে ২৯ ফেব্রুয়ারি (শনিবার) পর্যন্ত।

রোববার (১৯ জানুয়ারি) বিকালে এই সিদ্ধান্তের কথা জানান বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক ও কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী। তিনি ভোরের কাগজকে বলেন, ওইদিন বিকেল ৩টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ২৮ দিনের একুশে গ্রন্থমেলার উদ্বোধন করবেন। একইদিন ২০১৮ সালের বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার বিজয়ীদের হাতে পদক তুলে দেবেন প্রধানমন্ত্রী। পরে বিকাল ৫টায় সাধারণ দর্শক-পাঠকের জন্য খুলে যাবে মেলার দ্বার।

হাবীবুল্লাহ সিরাজী জানান, বাহান্নর চেতনা থেকে একাত্তর, যার ভেতরে জড়িয়ে আছে ৫৪, ৬২, ৬৬ ও ৬৯- বাঙালির স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা অর্জনের এই পথচলাকে এবার উদযাপন করা হবে মেলাজুড়ে। মেলার প্রতিপাদ্য ‘বিজয় : বাহান্ন থেকে একাত্তর (নব পর্যায়)’। মহাপরিচালক জানান, ২০২০ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ এবং ২০২১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনের যাত্রাও শুরু হবে এ মেলা থেকে।

একদিন পিছিয়ে মেলা প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতির সভাপতি ফরিদ আহমেদ বলেন, প্রকাশকদের কপালে সুখ সয় না। এবার লিপইয়ার হওয়ার কারণে আমরা একদিন বেশি পেয়েছিলাম। কিন্তু সেই একটা দিনও আমাদের হাত থেকে চলে গেল। অবশ্য উদ্ভুত পরিস্থিতি তো সবাই বুঝতে পারছি। তবে এটা না করে বরং একদিন আগে অর্থাৎ ৩১ জানুয়ারি করতে পারলে আমরা প্রকাশকরা পুরো ফেব্রুয়ারি মাসটিই পেয়ে যেতাম। তাতে করে পাঠক ও প্রকাশকদের জন্য ভালোই হতো।

অমর একুশে গ্রন্থমেলা শুরু একদিন পিছালেও মেলা আয়োজনের প্রস্তুতির কাজ এগিয়ে নিচ্ছে মেলার আয়োজক প্রতিষ্ঠান বাংলা একাডেমি। প্যাভিলিয়ন ও স্টল সাজাতে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রকাশকরা। চলছে বই মুদ্রণের কাজও। ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি পঞ্চম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দিন সারাদেশে সাধারণ ছুটি ছিল। সেদিনও অমর একুশে গ্রন্থমেলা অনুষ্ঠিত হয়। তবে এবার তা হচ্ছেন না।

সোহরাওর্দী উদ্যানে মহান একুশে গ্রন্থমেলার প্রস্তুতি। ছবি: ভোরের কাগজ।

বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক ও মেলা কমিটির সচিব ড. জালাল আহমেদ জানান, অমর একুশে গ্রন্থমেলা অন্য যে কোনও বারের চেয়ে আরও বিস্তৃত পরিসরে আয়োজন করা হচ্ছে। বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ এবং একাডেমির সামনের ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের প্রায় তিন লাখ বর্গফুট জায়গায় এবারের মেলা অনুষ্ঠিত হবে। তিনি জানান, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে এবারের মেলা উৎসর্গ করা হয়েছে তাকে।

বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণের নামকরণ করা হয়েছে ভাষা শহীদ বরকতের নামে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যান প্রাঙ্গণকে চারটি চত্বরে ভাগ করে উৎসর্গ করা হয়েছে ভাষা সংগ্রামী সালাম, রফিক, জব্বার ও শফিউরের নামে।

মেলায় ৪০টি নতুন প্রকাশনা সংস্থা বেড়ে হয়েছে ৪১০টি। এর মধ্যে প্যাভিলিয়ন ৩৪টি। বাড়ছে শিশু চত্বরের আয়তনও। ২৯ ফেব্রুয়ারি (শনিবার) পর্যন্ত ছুটির দিন ছাড়া প্রতিদিন বিকেল ৩টা থেকে রাত ৯টা, ছুটির দিন বেলা ১১টা থেকে রাত ৯টা এবং ২১ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত গ্রন্থমেলা চলবে।

এনএম



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে