নেপাল রাষ্ট্রদূতের সাথে স্পিকারের সাক্ষাৎ

0
102


নেপাল রাষ্ট্রদূতের সাথে স্পিকারের সাক্ষাৎ

জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি এর সাথে আজ সংসদ ভবনে তাঁর কার্যালয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত নেপালের রাষ্ট্রদূত মি. বংশিধর মিশ্র সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাৎকালে তাঁরা সংসদীয় গণতন্ত্র, সংসদীয় মৈত্রী গ্রুপ, দু’দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসার প্রভৃতি নিয়ে আলোচনা করেন।

ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশ ও নেপালের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক অত্যন্ত শক্তিশালী। ভবিষ্যতে এ সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। এসময় স্পীকার ২০১৭ সালের নেপাল সফরে সে দেশের রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও স্পীকারের সাথে সাক্ষাতের স্মৃতিচারণ করেন। ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, প্রবৃদ্ধি অর্জনের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের জিডিপি এখন ৮.১ শতাংশ। বর্তমান সরকার সুষম উন্নয়ন সুবিধা তৃণমূলে পৌঁছে দিচ্ছে বলে উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসার ও দু’দেশের সংসদীয় প্রতিনিধিদলের সফরের মাধ্যমে সংসদ ও সংসদ-সদস্যদের মধ্যে সম্পর্ক আরো নিবিড় হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন। স্পীকার মুজিব বর্ষ উদযাপন সম্পর্কে রাষ্ট্রদূতকে অবহিত করেন এবং নেপালের স্পীকারকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান।

রাষ্ট্রদূত নেপালের সংসদীয় গণতন্ত্রে উত্তরণ ইতিহাস স্পীকারকে অবহিত করেন। এসময় তিনি বাংলাদেশের উন্নয়ন ধারাবাহিকতার প্রশংসা করে বলেন, বাংলদেশের উন্নয়ন অনুসরণযোগ্য। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্থিতিশীল রাজনীতির জন্যই অভূতপূর্ব উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

নেপাল সংসদীয় গণতন্ত্রের উন্নয়ন ও অর্থনৈতিক উন্নয়নের পথে অগ্রসর হচ্ছে। ৭ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জনে নেপাল সক্ষম হয়েছে বলেও তিনি স্পীকারকে অবহিত করেন। মি. বংশিধর মিশ্র বাংলাদেশকে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বন্ধুপ্রতীম দেশ হিসেবে অভিহিত করে বলেন, পারস্পরিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে প্রতিবেশী দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে। এসময় সংসদ সচিবালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

এসএইচ



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে