মুজিব কোট পরলেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করা যায় না

0
24


মুজিব কোট পরলেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করা যায় না

মুজিব কোর্ট পরলেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করা যায় না। অথচ  প্রায় অনেকেই দেখি এ কোট পরে বলে মন্তব্য করেছেন, গণফোরামের এমপি সুলতান মোহম্মদ মনসুর আহমেদ। রবিবার (২৬ জানুয়ারি) জাতীয় সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষনের ওপর ধন্যৗবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় এসব কথা বলেন তিনি। এ সময় ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া সংসদে সভাপতিত্ব করছিলেন।

সুলতান মনসুর বলেন, নির্বাচনে বহু প্রতিকুল পরিস্থিতি মুকাবেলা করে বিজয়ী হয়েছেন। তিনি বলেন, ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস- ২০০৮ সালে যদি রাজনৈতিক পরিস্থিতির স্বীকার না হতেন তাহলে এবারে তাকে ধানের শীষ নিয়ে নির্বাচন করতে তো না, নৌকা নিয়েই নির্বাচন করতেন। পরিস্থিতির স্বীকার হয়েই এটা করতে হয়েছে। ২০০৮ সাল থেকে একটি রাজনৈতিক কারাগারে তিনি বন্দী ছিলেন বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, তা না হলে তিনিও নৌকা মার্কা নিয়ে বিজয়ী হতে পারতেন।

এ সময় তিনি বলেন, যারা বঙ্গবন্ধুকে হিটলার বলেছে, যারা তাকে ভারতের দালাল বলেছে তারা আজ এ সংসদে নৌকা মার্কা নিয়ে বিজয়ী হয়ে আছেন। ১৯৮৯ সালে বঙ্গবন্ধুর ছবি তিনি ডাকসু কার্যালয়ে টাঙান। তবে দুজন তাকে এ নিয়ে গুলি করতে গিয়েছিল। কিন্তু তবুও তিনি ছবি নামান নি। তিনি বলেন, এদেশের রাজনীতিতে ঢাকসুর ভিপি হিসেবে যে নীতি নিয়ে চলেছিলাম আজো তাতেই আছি। এখনো আমি জনসভায় জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু বলি। তিনি বলেন, যতদিন বেঁচে থাকবো বঙ্গবন্ধু আদর্শ বুকে ধারণ করেই কাজ করে যাব।

এসময় মুজিববর্ষে দুর্নীতিকে মোকাবিলা করে বঙ্গবন্ধুর আত্মাকে শান্তি দেবার আহ্বান জানান সুলতান মনসুর। তিনি বলেন, ব্যাংক থেকে কোটি কোটি লুটপাট যদি বন্ধ না করা যায় তাহলে দেশের উন্নয়ন সম্ভব হবে না। শুধু শেখ হাসিনা একা কি করবেন, সবাইকে জনমুখি, মানব প্রেমী হতে হবে। যে লক্ষে ২০ লাখ শহীদ বঙ্গবন্ধুর আহ্বানে যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিলেন তাদের আত্মা যাতে শান্তি পায় মুজিব বর্ষে এটাই হওয়া উচিৎ আমাদের আদর্শ।

এসএইচ



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে