গাইবান্ধা-ঢাকা-বাগেরহাটের উপ-নির্বাচন ২১ মার্চ

0
60


গাইবান্ধা-ঢাকা-বাগেরহাটের উপ-নির্বাচন ২১ মার্চ


পদত্যাগ ও মৃত্যুজনিত কারণে শূন্য হওয়া ঢাকা-১০, গাইবান্ধা-৩ ও বাগেরহাট-৪ সংসদীয় আসনে উপনির্বাচন আগামী ২১ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের সিনিয়র সচিব মো. আলমগীর। বৃহস্পতিবার (৬ফেব্রুয়ারী) দুপুরে নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের তিনি এ তথ্য জানান।

ইসি সচিব বলেন, এসব নির্বাচনে মনোনয়ন দাখিলের শেষ সময় ১৯ ফেব্রুয়ারি, যাচাই-বাছাই ২৩ ফেব্রুয়ারি, আপিল করা যাবে ২৪-২৬ ফেব্রুয়ারির মধ্যে। আপিল নিষ্পত্তি ২৮ ফেব্রুয়ারি ও মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ২৯ ফেব্রুয়ারি। আর প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে ১ মার্চ।

তিনি বলেন, তিনটি আসনের উপ-নির্বাচনের মধ্যে কেবল ঢাকা-১০ আসনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট হবে। এতে অন্য নির্বাচনের মতো সশস্ত্র বাহিনীর কারিগরি সহায়তা নেয়া হবে না।

উল্লেখ্য, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য গত বছরের ২৯ ডিসেম্বর পদত্যাগ করেন ঢাকা-১০ আসনের এমপি ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। ফলে ওই সংসদীয় আসনটি শূন্য হয়ে যায়।

গত ২৭ ডিসেম্বর রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন গাইবান্ধা-৩ আসনের এমপি ডা. ইউনুস আলী সরকার। আর গত ১০ জানুয়ারি রাজধানীর বিএসএমএমইউ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান বাগেরহাট-৪ আসনের এমপি ডা. মোজাম্মেল হোসেন। ফলে এ তিনটি আসন শুন্য ঘোষণা করে ইসি।

ইসি সচিব আরো বলেন, গাইবাবান্ধা-৩ আসনটি গত ২৭ ডিসেম্বর, ঢাকা-১০ আসনটি ২৯ ডিসেম্বর, ১০ জানুয়ারি বাগেরহাট-৪ শূন্য হয়েছে। সংবিধান অনুযায়ী, আসন শূন্য হওয়ার পরবর্তী নব্বই দিনের মধ্যে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠানের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সে অনুযায়ী, গাইবান্ধা-৩ আসনে আগামী ২৫ মার্চ, ঢাকা-১০ আসনে ২৭ মার্চ ও বাগেরহাট-৪ আসনে ৮ এপ্রিলের মধ্যে নির্বাচনের বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

এমএইচ



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে