তাদের পরিকল্পনা ছিল জালরুপি পাচারের

0
43


তাদের পরিকল্পনা ছিল জালরুপি পাচারের



রাজধানীর সবুজবাগ থানাধীন কদমতলা এলাকার একটি ফ্ল্যাটে অভিযান চালিয়ে মো. বশির উদ্দিন (৫১) নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রবিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে এ অভিযান চালানো হয়।

আটক বশির ভারতীয় জাল রুপি তৈরি চক্রের মূলহোতাদের একজন। তিনি যুক্তরাজ্য, চায়না, সিঙ্গাপুর, মালেয়শিয়া ও ব্রুনাইসহ আরো কয়েকটি দেশের বারে কাজ করেন। গত ২০১৫ সাল থেকে জাল মুদ্রা তৈরি করে আসছেন। প্রতি মাসে ১ কোটি ভারতীয় জালরুপি পাচারের পরিকল্পনা ছিল।

ঢাকা মহানগর ডিবি পুলিশের উত্তর শাখার উপকমিশনার মশিউর রহমান এ বিষয়ে ভোরের কাগজকে বলেন, অভিযানে এ চক্রের আরো ৭ সদস্যকে আটক করা হয়। তারা হলেন- মো. মনিরুজ্জামান (৩৫), মো. মনির হোসেন (৩২), মো. আ. কাদের ওরফে আল আমিন (৬২), মো. এনামুল হক আশারী (৩২), মো. আকবর আলী (৩০), মোঃ কবির হোসেন (৩৫) ও মো. সোহেল মাহমুদ (২৮)।

ভারতীয় জালরুপি

এছাড়াও ফ্ল্যাট থেকে ৪৯ লাখ তৈরীকৃত আরো ৪-৫ কোটি জাল রুপি তৈরীর কাগজ ও সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। তিনি আরো বলেন, ফ্ল্যাটে স্থাপিত জালরুপি তৈরির কারখানাটি পরিচালনার সার্বিক দায়িত্ব মনির হোসেন ও মনিরুজ্জানের ওপর থাকলেও প্রকৃত মালিক বশির উদ্দিন। আটকক মো. কবির হোসেন মূল কারিগর ও মো. সোহেল তার সহযোগী, আর আল্ আমিন জালরুপি তৈরীর বিভিন্ন সরঞ্জামাদি সরবরাহ করতেন।

ডিবি কর্মকর্তা বলেন, বশির উদ্দিনের কাছ থেকে এনামুল হক আশারী ও আকবর আলী প্রতি লাখ জালরুপি ২১ হাজার টাকায় কিনে ভারতীয় নাগরিক মোহনা, একরামুল ও হব্বুর কাছে ২৫ হাজার টাকায় বিক্রি করতেন।

তাদের বিরুদ্ধে সবুজবাগ থানায় মামলায় হয়েছে।

এসআর



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে