শেয়ার বিক্রি-ইজারার বিধান রেখে বিআরটিসি আইন পাস

0
91


শেয়ার বিক্রি-ইজারার বিধান রেখে বিআরটিসি আইন পাস


জনগণের কাছে ৪৯ শতাংশ শেয়ার বিক্রি ও বিআরটিসি বাস বা ট্রাক দীর্ঘ মেয়াদে ইজারায় পরিচালনার বিধান রেখে সংসদে পাস হয়েছে ‘বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশন (বিআরটিসি) আইন  ২০২০’।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সভাপতিত্বে একাদশ সংসদের ষষ্ঠ অধিবেশেন মঙ্গলবার বৈঠকে বিলটি সংসদের স্থিরকৃত আকারে কন্ঠভোটে পাস হয়। সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ‘রোড ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশন অর্ডিন্যান্স ১৯৬১’ রহিত করে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশন আইন ২০২০ বিলটি পাসের প্রস্তাব করেন। এরআগে বিলের ওপর আনীত জাতীয় পার্টির ফখরুল ইমাম, কাজী ফিরোজ রশীদ, পীর ফজলুর রহমানের কয়েকটি সংশোধনী গ্রহণ করা হয়। তবে জনমত যাচাই, বাছাই কমিটিতে প্রেরণ ও অপর সংশোধনীর প্রস্তাব কন্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়। বিলটির ওপর ডা. রুস্তম আলী ফরাজী, বিএনপির হারুনুর রশীদ ও ব্যারিষ্টার রুমিন ফারহানার সয়ংশোধনী গ্রহণ করেননি সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী।

বিলটি পাসের যৌক্তিকতা তুলে ধরে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিআরটিসি একটি সেবামূলক প্রতিষ্ঠান। সাশ্রয়ী মূল্যে পরিবহণ সেবা প্রদান করে বিআরটিসি এরমধ্যে জনগণের আস্থা অর্জন করেছে। দেশের ৪২৮টি রুট ও ৫টি আন্তর্জাতিক রুটে বিআরটিসি পরিচালিত হচ্ছে। নতুন আরো দু’টি আন্তর্জাতিক রুট শীঘ্রই চালু হবে। বর্তমানে বিআরটিসিতে ১৮৩০টি বাস রয়েছে। এরমধ্যে ১৩৩২টি সচল রয়েছে। ইন্ডিয়ার লাইন অব ক্রেডিটে ১০২৮টি নতুন বাস ও ৫শ’ ট্রাক কেনা হয়েছে।

বিলের (চ) ধারায় বলা হয়েছে, ‘বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্পোরেশন’-এর জন্য এক হাজার কোটি টাকা মূলধনের প্রস্তাব করা হয়েছে। এই মূলধন একশ’ কোটি সাধারণ শেয়ারে বিভক্ত হবে। ৫১ শতাংশ শেয়ার সরকরের মালিকানায় থাকবে। অবশিষ্ট ৪৯ শতাংশ শেয়ার জনগণের কাছে বিক্রির বিধান রাখা হয়েছে। এছাড়া বিলে বিআরটিসি বাস বা ট্রাক দীর্ঘ মেয়াদে সুনির্দিষ্ট নীতিমালার ভিত্তিতে ইজারায় পরিচালনার বিধান রাখা হয়েছে।



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে