সৌদি হজ্জ্ব অফিসে ৪৫ কোটি টাকা লুটপাট

0
60


সৌদি হজ্জ্ব অফিসে ৪৫ কোটি টাকা লুটপাট

ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ সৌদি আরবে অবস্থিত হজ্জ্ব অফিসসমূহের ২০১৫-২০১৬ ও ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরে ৪৫ কোটি টাকার অনিয়ম বা লুটপাট হয়েছে বলে জানিয়েছে একাদশ জাতীয় সংসদের সরকারী হিসাব সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি।
বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) স্থায়ী কমিটির ২৫তম বৈঠক কমিটির সভাপতি মোঃ রুস্তম আলী ফরাজীর সভাপতিত্বে জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে বাংলাদেশের কম্পট্রোলার এন্ড অডিট জেনারেল এর বার্ষিক অডিট রিপোর্ট ২০১৭-২০১৮ এ অন্তর্ভুক্ত মোট ছয়টি অডিট আপত্তির অর্থের পরিমাণ ৪৪ কোটি ৯৫ লাখ ১ হাজার ১ শত ৯৪ টাকা, যা অনিয়ম করে আত্মস্বাদ করা হয়েছে বলে রিপোর্ট দেয়া হয়েছে। এসময় কমিটি আপত্তিগুলো নিষ্পত্তি ও দোষীদের শাস্তির সুপারিশ করেছে।
বৈঠকে কমিটির সদস্য মোঃ আব্দুস শহীদ, মোঃ শহীদুজ্জামান সরকার, সালমান ফজলুর রহমান, জহিরুল হক ভূঞা মোহন,মনজুর হোসেন ও মুস্তফা লুৎফুল্লাহ অংশগ্রহণ করেন।
বৈঠকের কার্যপত্র থেকে জানান গেছে, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীন সৌদি আরবে অবস্থিত হজ্জ্ব অফিসসমূহের ২০১৫-২০১৬ ও ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরের হিসাব বৈঠকে বাংলাদেশ হতে আগত বিভিন্ন হজ্জ্ব দলের অভ্যন্তরীণ যাতায়াতের জন্য বাস ভাড়া হজ্জ্ব অফিস খরচ, জেদ্দার বাজেট থেকে খরচ করায় ২ কোটি ৪৫ লাখ ৯৭ হাজার ৮ শত ৮৮ টাকা ক্ষতি হয়েছে। বাংলাদেশ দূতাবাস, রিয়াদ ও বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল, জেদ্দা অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মক্কা-মিনা-আরাফা-মুজদালিফায় যাতায়াত বাবদ বাস ভাড়া ও হোটেল ভাড়া দেয়ায় ১ কোটি ৫৫ লাখ ৬৩ হাজার ৫ শত ২০ টাকা আর্থিক ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া ২১ বছরের পরবর্তী সময়ের জন্য শিক্ষা ভাতা গ্রহণ করায় ১৪ লাখ ৮২ হাজার ৮ শত ১২ টাকা লুটপাট হয়েছে বলে অডিট আপত্তি রয়েছে। ২৩ বছরের পরবর্তী সময়ের জন্য শিক্ষা ভাতা গ্রহণ করায় ১২ লাখ ৯২ হাজার ৫ শত ৬৩ টাকা অডিট আপত্তিতে লুটপাট হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। অনিয়মিতভাবে হোটেল ভাড়া দেয়ায় ৫ লাখ ২২ হাজার ২ শত ৮ টাকা অডিট আপত্তি, অনিয়মিতভাবে দৈনিক ভাতা (ডিএ) গ্রহণ করায় ১৪ লাখ ৯২ হাজার ২ শত ৩ টাকা অডিট আপত্তি করা হয়েছে। এসব আপত্তি তিন মাসের মধ্যে আদায়পূর্বক নিষ্পত্তির সুপারিশ করা হয়েছে।



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে