বায়তুল মোকাররমকে সন্ত্রাসের আখড়া বানিয়েছিল বিএনপি-জামায়াত

0
30


বায়তুল মোকাররমকে সন্ত্রাসের আখড়া বানিয়েছিল বিএনপি-জামায়াত

জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমকে বিএনপি-জামায়াত সন্ত্রাসীদের আখড়া বানিয়েছিল বলে মন্তব্য করেছেন নৌ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, এখান থেকে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড পরিচালনা করা হতো। সারা বিশ্বে তারা আমাদের সম্মানহানি করেছিল। এখন আর সেটা নেই।

রবিবার (১৫ মার্চ) বিকেলে গণতন্ত্রী পার্টি আয়োজিত ‘ধর্মে কোন জঙ্গীবাদের স্থান নেই’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন। জাতীয় প্রেস ক্লাবে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমনণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম।

মোহাম্মদ নাসিম করোনা থেকে রক্ষায় পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন থাকার পাশাপাশি দেশবাসীকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানান।
অনুষ্ঠানে খালিদ মাহমুদ বলেন, বায়তুল মোকাররমসহ দেশের কোন মসজিদ-মাদ্রাসার উন্নয়ন বিএনপি করেনি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন সাচ্চা মুসলমান। তিনি দেশে ৫৬০টি মডেল মসজিদ নির্মাণ করছেন। বায়তুল মোকাররমের আধুনিকায়নের কাজও তিনি করেছেন।

ইসলামের প্রচার-প্রসার এবং মাদ্রাসা শিক্ষার উন্নয়নে বঙ্গবন্ধুর অসামান্য অবদান তুলে ধরে খালিদ মাহমুদ বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর ইসলামকে এক ইঞ্চিও এগিয়ে নেয়া হয়নি। অথচ তারাই সংবিধানে বিসমিল্লাহ স্থাপন করেছে। এটা ছিল তাদের ভণ্ডামি। তিনি বলেন, ৫ই মে একটি অন্যায্য দাবিকে কেন্দ্র করে ঢাকা শহরে ইসলামকে ব্যাবহার করে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করা হয়েছিল।

খালেদা জিয়ার মুক্তি প্রসঙ্গে নৌ প্রতিমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়া আইনগতভাবে মুক্তি পাবেন না। কারণ তিনি একজন অপরাধী। তাকে মুক্তি দিলে দেশের সকল অপরাধীদের মুক্তি দিতে হবে। অন্যদের চেয়ে খালেদা জিয়া আরো বড় অপরাধী; কারণ খালেদা জিয়া দেশকে ৫০ বছর পিছিয়ে দিয়েছেন।

গণতন্ত্রী পার্টির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মাহমুদুর রহমান বাবুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানের খতিব আল্লামা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ, জেপির মহাসচিব শেখ শহীদুল ইসলাম, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, জাসদ একাংশের সভাপতি শরীফ নুরুল আম্বিয়া, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন, গণআজাদী লীগের সভাপতি এস কে শিকদার, ন্যাপের ইসমাইল হোসেন, বাংলাদেশ কৃষক সমিতির সভাপতি এ্যাড. এস কে শিকদার, আলেম মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম সভাপতি সদরুদ্দিন মাকনুন প্রমুখ।

ডিসি



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে