মালিকদের উদ্যোগে বন্ধ হচ্ছে গার্মেন্টস

0
13


মালিকদের উদ্যোগে বন্ধ হচ্ছে গার্মেন্টস

বিশ্বজুড়ে করোনা পরিস্থিতি অবনতির সঙ্গে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক খাতেও ভয়ঙ্কর প্রভাব পড়ছে। করোনার কারণে বিদেশি ক্রেতারা এরই মধ্যে ২ বিলিয়ন ডলারের অর্ডার বাতিল করেছেন। তৈরি পোশাক খাতের মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ’র তথ্য বলছে, শুধু চলতি মার্চ মাসই নয়, আগামী এপ্রিল, মে ও জুন মাসের অর্ডারও বাতিল করছেন ক্রেতারা। এমন পরিস্থিতিতে আজ মঙ্গলবার বিজিএমইএর পক্ষ থেকে সকল গার্মেন্টস মালিকদের জানানো হয়েছে যে, যদি তারা কারখানা বন্ধ করেন তাহলে শ্রম আইনের সমস্ত বিধিমালা অনুযায়ী কারখানা বন্ধ করতে হবে।

বিজিএমইএ সূত্রে জানা গেছে, ইতিমধ্যে সাতটি কারখানার কতৃপক্ষ তাদের কারখানা বন্ধ করে দিয়েছেন। গার্মেন্টসে বন্ধ রাখার বিষয়ে জানতে চাইলে বিজিএমইএর সভাপতি রুবানা হক বলেন, আমি কেবল আমাদের সহকর্মীর সাথে কথা বলেছি যারা শ্রম পরিচালনা করে। তারা রিপোর্ট করেছেন যে, তারা জরিপ করেছেন ৮০০ টি কারখানার মধ্যে ৬৫% এরও বেশি কারখানা খোলা থাকতে চায়। এবং প্রায় ২৫% বন্ধ রাখার পক্ষে।

জানা গেছে, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ১৩৬টি ব্র্যান্ড তাদের অর্ডার বাতিল বা স্থগিত করেছে। করোনাভাইরাস ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ার পর তৈরি পোশাকের চাহিদা কমে গেছে। বিজিএমইএ’র তথ্য বলছে, প্রায় সাড়ে চার হাজার তৈরি পোশাক কারখানায় কাজ করেন অন্তত ৫০ লাখ মানুষ, যাদের বেশিরভাগই নারী শ্রমিক। এদিকে তৈরি পোশাক কারাখানা বন্ধ করার বিষয়ে মালিকরাই সিদ্ধান্ত নেবেন বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস।

এসএইচ



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে