মোমবাতির আলোয় ‘আঁধার ভাঙার শপথ’

0
38


মোমবাতির আলোয় ‘আঁধার ভাঙার শপথ’

‘প্রজন্ম হোক সমতার, নিশ্চিত হোক নারীর অধিকার’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে আন্তর্জাতিক নারী দিবসের প্রথম প্রহরে আঁধার ভাঙার শপথ নিয়েছেন নারীরা। গতকাল শনিবার (৭মার্চ) রাত ১২টায় কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার প্রাঙ্গণে মোমবাতি প্রজ্বলনের মাধ্যমে শতাধিক নারী এ শপথ গ্রহণ করেন।

নারী নির্যাতন প্রতিরোধ জোট ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌথ উদ্যোগে আঁধার ভাঙার এই শপথ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। রাত ১১টা থেকে ‘সঙ্কোচের বিহ্বলতা নিজেরে অপমান’ গানের মধ্য দিয়ে শুরু হয় এ অনুষ্ঠান। আলোচনা, প্রতিবাদী গান ও নৃত্য পরিবেশনায় চলতে থাকে নারীর প্রতি নির্যাতন বন্ধের আহ্বান।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি মেহের আফরোজ চুমকি বলেন, আমরা এদেশের অন্ধকার দূর করতে চাই। যে অন্ধকার নারীকে পিছনে ফেলছে, সে আঁধার আমরা দূর করবো। নারী আমার মা, বোন কিংবা কন্যা। নারীকে বাদ দিয়ে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সংবিধানে নারীদের সমঅধিকার দিয়েছিলেন। মুজিববর্ষের প্রাক্কালে তার এ উদ্যোগ আমরা পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন করব, এটাই হোক আমাদের প্রতিজ্ঞা।

তিনি আরও বলেন, নারীরা আজ এগিয়ে যাচ্ছে প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে খেলার মাঠে সর্বত্র। তারা বহিঃর্বিশ্ব থেকে সম্মান বয়ে নিয়ে আসছে। নারীর প্রতি সহিংসতা ও বাল্যবিবাহ রোধে পুরুষদের সাথে নিয়ে সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে।

ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. আখতারুজ্জামান বলেন, যেসব বিষয়ে নারীরা নির্যাতনের শিকার হয় সেসব বিষয়ে সজাগ দৃষ্টি রেখে আমাদের সচেতন হতে হবে। শুধু আজকের নারী দিবস উদযাপন নয়, প্রতিটি দিনই হোক নারীর জন্য আঁধারমুক্ত। শিক্ষিত হওয়ার ফলেই সকল ক্ষেত্রে নারীরা তাদের অধিকার আদায়ের ক্ষেত্রে আরো বেশি সোচ্চার হতে পারছে।

এরপর মোমবাতি প্রজ্বলন শেষে নারীদের ওপর সব ধরনের নির্যাতনের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ থাকার শপথবাক্য পাঠ করান ‘আমরাই পারি নারী নির্যাতন প্রতিরোধ জোটে’র উপদেষ্টা ও এশিয়াটিক সোসাইটির সভাপতি মাহফুজা খানম।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, বিভিন্ন নারী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, মানবাধিকারকর্মী, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকসহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঁচটি ছাত্রী হলের কয়েকশ’ শিক্ষার্থী।

নকি



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে