আগস্টের শেষে ঢাকা ও পাবনার উপনির্বাচনের তফসিল

0
23


আগস্টের শেষে ঢাকা ও পাবনার উপনির্বাচনের তফসিল

আগামী আগস্ট মাসের শেষে পাবনা-৪ ও ঢাকা-৫ আসনের উপ-নির্বাচনের তফসিল দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মো. আলমগীর। সোমবার (২০ জুলাই) বিকেলে নির্বাচন ভবনে নিজ দফতরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব তথ্য জানান তিনি।

তিনি বলেন, সে সময় সিরাজগঞ্জ-১ আসনের উপ-নির্বাচন নিয়েও আলোচনা হবে। তবে ঢাকা-১৮ আসনের উপ-নির্বাচনের সিদ্ধান্ত আরো পরে হবে।

মো. আলমগীর বলেন, আজ কমিশনের ৬৩তম কমিশন বৈঠক ছিল । আপাতত কোনো নির্বাচনের সিদ্ধান্ত হয়নি। ঢাকা-৫ ও পাবনা-৪ আসনের ভোট করোনার কারণে আগেই পিছিয়ে দেওয়া হয়েছিল। প্রধান নির্বাচন কমিশনার তার হাতে থাকা নব্বই দিন (মোট ১৮০ দিন) সময়ের মধ্যে ভোটের সিদ্ধান্ত দিয়েছিলেন। সেই মেয়াদ শেষ হবে যথাক্রমে ১ নভেম্বর ও ২৮ সেপ্টেম্বর।

সচিব বলেন, দেশে বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি চলমান, তাই আপাতত ভোট হচ্ছে না। আগস্টের শেষ সপ্তাহে কমিশন বৈঠকে এই দুই আসনের ভোটের সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। এছাড়া সিরাজগঞ্জ-১ আসনেও পরবর্তী নব্বই দিনের মধ্যে ভোটের সিদ্ধান্ত দিয়েছেন কমিশন। এ আসনের ভোটও কবে হবে, তা নিয়েও আগস্টের শেষ সপ্তাহের কমিশন বৈঠকে আলোচনা হবে। এ ক্ষেত্রে আগামী ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত এ আসনে ভোটের সময় পাওয়া যাবে। অন্যদিকে ঢাকা-১৮ আসনটি সম্প্রতি শূন্য হয়েছে। এই আসনের ভোটের জন্য এমনিতেই ৬ অক্টোবর পর্যন্ত সময় আছে। পরবর্তী নব্বই দিনেও ভোট করলে ১৪ জানুয়ারি পর্যন্ত সময় আছে। কাজেই এ নির্বাচন নিয়ে পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত নেয়অ হবে বলে জানান সচিব।

উল্লেখ্য, গত ৬ মে বার্ধক্যজনিত কারণে হাবিবুর রহমান মোল্লা মৃত্যুবরণ করলে ঢাকা-৫ আসনটি শূন্য হয়। এছাড়া ২ এপ্রিল সাবেক ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলু ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেলে পাবনা-৪ আসনটি শূন্য হয়। অন্যদিকে সিরাজগঞ্জ-১ আাসনটি শূন্য হয় সাবেক সংসদ্য মোহাম্মদ নাসিম গত ১৩ জুন মারা গেলে। আর গত ৯ জুলাই অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন থাইল্যান্ডের একটি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করলে শূন্য হয় ঢাকা-১৮ আসন।

এমএইচ



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে