শোক-দুর্যোগে বিবর্ণ ঈদ আনন্দ

0
11


শোক-দুর্যোগে বিবর্ণ ঈদ আনন্দ

শোকের মাসের প্রথম দিনে ঈদুল আহজা। এমনিতেই করোনামহামারিতে বিপর্যস্ত জনজীবন। এর ওপর বন্যাসহ প্রাকৃতিক দুর্যোগের ধাক্কা। এসবের মধ্যে দ্বিধা আর অস্বস্তি বাড়িয়ে দিয়েছে ঈদ আনন্দ। ম্লান-বিবর্ণ করে দিয়েছে উচ্ছ্বাস-আনন্দ। এবারও ঈদ এলো, তবে করোনা আর বৃষ্টির বাগড়ায় আগের মতোই ঘরবন্দী হয়ে কাটলো গোটা সময়। অথচ নাগরিক যান্ত্রিক জীবনে ঈদ এলেই একটু ঘুরতে বের হন রাজধানীবাসী।

শোকের মাসের শুরুতে ঈদ আনন্দ নিরানন্দ পরিবেশে উদযাপিত হচ্ছে। ব্যাহত হচ্ছে স্বাভাবিক জীবনযাত্রাও। তাই এবার গলি থেকে রাজপথ অনেকটাই ফাঁকা। চিড়িয়াখানা থেকে হাতিরঝিল, ধানমণ্ডি লেক কোথাও মানুষের ভিড় নেই। অবশ্য করোনার মধ্যেও লাখো মানুষ শেকড়ের টানে ঢাকা ছেড়েছেন।

তবে ঈদুল আজহায় বাড়ি যাননি, বা যেতে পারেননি এমন কিছু তরুণ-তরুণীর সাক্ষাৎ মিললো ঈদের দিনের বিকেলে হাতিরঝিল লেকে। যাদের সবারই মুখে মাস্কে শোকের আবহ। যারা সেলফি তোলা আর আড্ডায় মশগুল। কেউ কেউ ছিলেন লেকের ধারে আনমনে ফুসকা খাওয়ার ব্যস্ত।

হাতিরঝিলের ব্রিজে অল্প কয়েকজন মানুষের দেখা মিললো। তাদেরই একজন তরুণ সাজ্জাদ রহমান। পাঁচ মাস আগে বিয়ে করেছেন। অথচ করোনার কারণে এবার ঈদে বাড়ি যাওয়া হলো না তার। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাই বন্ধুকে নিয়ে হাতিরঝিল ঘুরতে এসেছেন।

বনানী এলাকার বাসিন্দা বাবলু তার দুই বন্ধু ইমন আর শুভমকে নিয়ে হাতিরঝিল ঘুরতে এসেছেন। তিনি বলেন, করোনার কারণে দীর্ঘ কয়েকমাস ধরে অনেকটা গৃহবন্দী সময় কাটাচ্ছি। মন উচাটন করছিল। মুক্ত পরিবেশে মনটাকে একটু ফ্রেশ করতে ঘুরতে এলাম। এসে স্তম্ভিত সবই প্রাণহীন। স্বাভাবিক সময়েও হাতির ঝিলে এমন ফাঁকা দৃশ্য কোনো দিন চোখে পড়েনি। এমন ম্লান এবং রঙহীন ঈদ জীবনে এই প্রথম, আর কোনো দিন দেখিনি। তাই আনন্দও একটু কম।

রাম কৃষ্ণ মিশন রোড থেকে আসা ডিভোর্সি মাহবুব চৌধুরী বলেন, দীর্ঘ ছাব্বিশ বছরের বিবাহিত জীবনের ইতি টেনেছেন বছর পাঁচেক আগে। থাকেন একাকি। করোনার কারণে নিজেকে স্বেচ্ছাবন্দী করে রেখেছিলেন। ঘরে থাকতে থাকতে দম বন্ধ হয়ে আসছিল। তাই দীর্ঘদিন পর আজ ঈদের দিন একটু মুক্ত বাতাসে নিঃশ্বাস নিতে এসেছেন হাতির ঝিলের খোলা আকাশের নিচে।

বঙ্গবন্ধু ভক্ত এই দর্শনার্থী বলেন, এবারের ঈদে বড্ড অস্বস্তি আর বিব্রত বোধ করছি। শোক আর আনন্দ এক সঙ্গে হয় নাকি?

তবে দর্শনার্থীরা আশা করছেন পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে মানুষ ঘুরতে বের হলে ফিরে পাবে প্রাণ হাতিরঝিল, ধানমণ্ডি লেক, চিড়িয়াখানাসহ রাজধানীর পর্যটন স্পটগুলো।

এনএম



একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে