সখীপুরে স্ত্রীর মামলায় স্বামী শ্রীঘরে

0
10

এম সাইফুল ইসলাম শাফলু: টাঙ্গাইলের সখীপুরে দ্বিতীয় স্ত্রীর দায়ের করা মামলায় স্বামী শ্রীঘরে রয়েছেন। শুক্রবার রাতে স্ত্রী লাবনী আক্তার তার স্বামী উপজেলার প্রতীমাবংকী পূর্বপাড়া গ্রামের দারগালীর ছেলে শাহাদত হোসেনের (৩৫) বিরুদ্ধে নারী শিশু নির্যাতন দমন আইন ১১’র খ ধারায় সখীপুর থানায় মামলা করলে পুলিশ ওই রাতেই তাকে গ্রেফতার করে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালে পরকীয়ার সম্পর্কে উপজেলার দাড়িয়াপুর ইউনিয়নের কৈয়ামধূ গ্রামের আরফান আলীর মেয়ে লাবনী আক্তারের সঙ্গে একই উপজেলার প্রতীমাবংকী পূর্বপাড়া গ্রামের দারগালীর ছেলে শাহাদত হোসেন বিয়ে হয়। শাহাদত হোসেনের এর আগেও স্ত্রী সন্তান রয়েছে। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই লাবনী আক্তারের ওপর যৌতুক চেয়ে নানাভাবে নির্যাতন চালাতে থাকে স্বামী শাহাদত হোসেন। এ নিয়ে বেশ কয়েক দফায় বিচার শালিশও বসে ওই দুই পরিবারের মধ্যে।

গত ১২ জুন যৌতুকের দাবিতে ঘরের ভেতর আটকিয়ে স্ত্রী লাবনী আক্তারকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে শাহাদত। খবর পেয়ে লাবনীর পরিবারের লোকজন মূমুর্ষূ অবস্থায় সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করে লাবনীকে। কিছুটা সুস্থ্য হয়ে গত ২১ জুন শুক্রবার রাতে স্বামীর নির্যাতনের বিচার চেয়ে লাবনী আক্তার সখীপুর থানায় মামলা করলে পুলিশ ওই রাতেই স্বামী শাহাদত হোসেনকে গ্রেফতার করে।

মামলার বাদী লাবনী আক্তার জানান- প্রেমের বিয়ে ছিল আমাদের। বছর ঘুরতে না ঘুরতেই বাবার বাড়ি থেকে যৌতুকের টাকা এনে দিতে আমার ওপর নির্যাতন চলতে থাকে। আমি আমার স্বামী নামক পাষ- লোকটার দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মজিবুর রহমান বলেন- নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে স্বামী শাহাদত হোসেনকে গ্রেফতার শনিবার টাঙ্গাইল আদালতে পাঠানো হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে