মির্জাপুরে সেই সংখ্যালঘু পরিবারের পাশে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার

0
40

মির্জাপুর প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের মির্জাপুর পৌর সদরের দুর্গাপুর গ্রামের সংখ্যালঘু স্বপ্না সরকারের বসতবাড়ির একটি ঘর দুর্বৃত্তরা পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনার পর শুক্রবার দুপুরে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক ও জেলা পুলিশ সুপার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ঐ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছেন। এসময় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৬ বান টিনশেডও প্রদান করা হয়।

পরিদর্শনকালে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক মোঃ শহীদুল ইসলাম, জেলা পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়, মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আবদুল মালেক, সহকারি কমিশনার ভূমি মোঃ মাঈনুল হক, থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ সায়েদুর রহমান, মামলার তদন্তকারী থানার এস.আই মোহাম্মদ মুরাদ জাহান, বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

মামলাটির তদন্ত সুষ্ঠুভাবে করার জন্য জেলা থেকে মনিটরিং করবেন বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন টাঙ্গাইল জেলা পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়। এই ধরণের ঘটনা যেনো পরবর্তীতে না হয় সেজন্য পুলিশ টহলের ব্যবস্থা করা হবে এবং পুলিশি যেসকল কার্যক্রম করা প্রয়োজন তা করা হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। পরিদর্শনকালে ঐ পরিবারকে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে নগদ ১০ হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়।

এটি একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা দাবি করে জেলা প্রশাসক মোঃ শহীদুল ইসলাম বলেন, ঘরটি নির্মাণের জন্য জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিকভাবে ৩০ হাজার টাকা ও ৬ বান টিনশেড দিয়েছি। তদন্ত করে এ ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় আনারও আশ্বাস দেন তিনি।

উল্লেখ্য বৃহস্পতিবার রাত ২ টার দিকে পৌর সদরের দুর্গাপুর গ্রামের স্বপ্না সরকারের বসতবাড়ির একটি ঘরে হঠাৎ আগুন লাগিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। পরে আগুন দেখতে পেয়ে ডাক-চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন এসে পানি দিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা চালায়। ততক্ষণে ঘরের আসবাবপত্র থেকে শুরু করে সকল কিছু পুড়ে ভষ্মীভূত হয়ে যায়। এ ঘটনায় ঘরের আসবাবপত্রসহ প্রায় ৩ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে মামলার এজাহার সুত্রে জানা যায়।

 

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে