ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে পানি সরবরাহ বন্ধ থাকায় সীমাহীন দুর্ভোগে রোগীরা

0
11

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পানির পাম্প বিকল থাকায় ১০ দিন ধরে পানি সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। এতে চরম বিপাকে পড়েছে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের রোগী ও আবাসিক ভবনে থাকা ডাক্তার, নার্সসহ কর্মকর্তা কর্মচারীরা। পানি না থাকায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সর্বত্র দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে।

জানা যায়, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পানি সরবরাহের পাম্পটি গত ১০ অক্টোবর বিকল হয়ে যায়। এতে পানি সরবরাহ বন্ধ রয়েছে পুরো স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। ফলে চিকিৎসা নিতে আসা রোগী, আবাসিক ভবনে থাকা ডাক্তার, নার্সসহ কর্মকর্তা কর্মচারীরা চরম ভোগাস্তির শিকার হচ্ছেন। টয়লেট ও গোসল খানা ব্যবহার করতে পারছেন না হাসপাতেলে ভর্তি হওয়া রোগী ও তাদের স্বজনরা। এতে ভর্তিকৃত দুস্থ্য ও অসহায় রোগীরা চিকিৎসা নিতে অন্যত্র চলে যেতে বাধ্য হচ্ছে। ৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালটি এখন প্রায় রোগী শূন্য। হাসপাতালের জরুরি বিভাগে পানির অভাবে চিকিৎসা দিতে হিমশিম খাচ্ছেন চিকিৎসকরা। হাসপাতালের বাইরে টেউবওয়েল থেকে বালতি করে পানি এনে জরুরি বিভাগ চালাতে হচ্ছে তাদের।সরেজমিনে গিয়ে লক্ষ্য করা যায়, হাসপাতালে ভর্তিকৃত রোগীরা তারা পানির অভাবে টয়লেট ব্যবহার করতে পারছেন না। তারা বাইরে থেকে বালতি করে পানি এনে টয়লেট ব্যবহার করছেন। পানি না থাকায় টয়লেটের দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে পুরো স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স জুড়ে। ঘটনার দশ দিন পেরুলেও কর্তৃপক্ষের উদাসীনতার কারনে বিকল হওয়া পাম্পটি এখনো চালু করতে পারেনি।

চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরা অভিযোগ করে বলেন, কয়েকদিন ধরে খুব কষ্ট করে হাসপাতালে আছি। টয়লেটে পানি না থাকায় খুবই অসুবিধা হচ্ছে। যাদের সামর্থ্য আছে তারা এখান থেকে অন্য জায়গায় চিকিৎসা নিতে চলে গেছে। আমাদের তো সে সামর্থ্যও নেই। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে একাধিক নার্স জানান, পানি সরবরাহ না থাকায় হাসপাতালের পরিবেশ দূষণ হয়ে গেছে। হাসপাতাল জুড়ে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে কর্মরত স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের জুনিয়র মেকানিক খোরশেদ আলম বলেন, পাইপে আয়রন জমার কারনে হঠাৎ করে পাম্প বিকল হওয়ায় পানি সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মহীউদ্দিন আহম্মেদ পানি সরবারহ বন্ধ থাকার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, ‘জেলা স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের সহকারি প্রকৌশলী পাম্প নিয়ে গেছেন। দু-এক দিনের মধ্যে পাম্পটি মেরামত করে লাগালেই পানি সরবরাহ স্বাভাবিক হবে। ১০ দিন বন্ধ থাকার কারন জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটি প্রকৌশল বিভাগের কাজ।

এ বিষয়ে টাঙ্গাইল জেলা সিভিল সার্জন ডা. শরীফ হোসেন খান বলেন, শুনেছি ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পানি সরবরাহের পাম্পটি নষ্ট হয়েছে। তবে ১০ দিন ধরে পানি সরবরাহ বন্ধ রয়েছে এটি আমার জানা নেই। পাম্পটি আগেই মেরামত করা উচিৎ ছিল।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে